সাইনাস সার্জারি

0

নাকের উভয় পাশে কতগুলো সাইনাস থাকেÑ একটি ফ্রন্টাল সাইনাস, একটি ম্যাক্সিলারি সাইনাস, একটি স্ফেনয়েড সাইনাস এবং কতগুলো ইথময়েড (মোট ৪-১৭টি, গড়ে ৯টি) সাইনাস, যা সম্মুখভাগ এবং পশ্চাৎভাগ এ দুই গুচ্ছে বিভক্ত। নাক ও চোখের চারপাশের হাড়ের ভেতর অবস্থিত কিছু বায়ুপূর্ণ কুঠুুরিকে সাইনাস বলা হয়।

টেলিস্কোপের ব্যবহার ছাড়া এসব সাইনাসের অন্তর্কাঠামো অবলোকন অথবা কোন রকম অপারেশন করা সম্ভব নয়। তাই একিউট ও ক্রনিক সাইনাসের সমস্যার যথাযথ অবস্থান নিরূপণ এবং তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ক্ষেত্রে এন্ডোস্কোপের ব্যবহার বর্তমান যুগে অত্যাবশ্যক। এন্ডোস্কোপ এক বিশেষ ধরনের গ্লাস ফাইবার দ্বারা নির্মিত টেলিস্কোপ, যার দ্বারা শরীরের অভ্যন্তরের গভীরে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো বাইরে থেকে অবলোকন করা সম্ভব।

সাইনাসগুলো স্বাভাবিকভাবে নাকের মধ্যে প্রবাহিত হয়। এগুলো কর্মক্ষম থাকার জন্য তার এ স্বাভাবিক প্রবাহ বজায় থাকা অত্যাবশ্যক। এ স্বাভাবিক প্রবাহ বাধাপ্রাপ্ত হলে নাক ও শ্বাসনালি থেকে সাইনাসগুলোতে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ ঘটে। এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারির মূলমন্ত্র হলÑ সাইনাসের স্বাভাবিক প্রবাহের বাধাপ্রাপ্তির স্থান সঠিকভাবে নিরূপণ ও তদনুযায়ী ন্যূনতম অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে স্বাভাবিক প্রবাহ পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা। প্রচলিত সাইনাস ওয়াশ প্রক্রিয়ায় সাইনাসের প্রবাহ পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য কৃত্রিম পথ তৈরি করা হয়ে থাকে। মাসারক্লিনজার এবং স্ট্যামবার্গার সন্দেহাতীতভাবে এবং সফলতার সঙ্গে উদ্ভাবন করেছেন, এ রকম কৃত্রিম পথ সৃষ্টির মাধ্যমে সাইনাসের প্রবাহ স্থায়ীভাবে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয়। তাই সাইনাসের প্রবাহের বাধার স্থান সঠিকভাবে নিরূপণ করে সে বাধা দূর করাই এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারির মূল্য লক্ষ্য। এ কাজ এন্ডোস্কোপ ছাড়া কোনভাবেই সম্ভব নয়।
কৃত্রিম পথ তৈরি না করে সাইনাসের প্রবাহের স্বাভাবিক পথ পুনঃপ্রতিষ্ঠা করাই সাইনাস সার্জারির উদ্দেশ্য। এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারির মাধ্যমে সাইনাসজনিত সমস্যাগুলোর শতকরা ৯০ ভাগেরও বেশি নিরাময় করা সম্ভব। এ অপারেশনের জটিলতা খুব সামান্য এবং জীবনের কোন ঝুঁকি নেই। এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারি অজ্ঞান করে অথবা অজ্ঞান না করে নাকের ভেতর অবশ করেÑ এ দু’ভাবেই করা সম্ভব। অজ্ঞান করতে হলে বিশেষ ধরনের অজ্ঞান প্রক্রিয়ার (হাইপোটেনসিভ অ্যানেসথেসিয়া) প্রয়োজন।
ব্যথানাশক ওষুধ দিয়ে এবং হালকা ঘুম পাড়িয়ে নাকের ভেতর অবশ করেও এ অপারেশন করা যায়। অজ্ঞান করেই হোক অথবা না করেই হোক, সঠিক মাত্রায় ব্যথার উপশম, চিন্তার উপশম ও নিশ্চিতকরণÑ এগুলো যে কোন অপারেশনের পূর্বশর্ত।
নাক এবং সাইনাস ছাড়াও সাইনাসের আশপাশের কিছু গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নাকের ভেতর দিয়ে এন্ডোস্কোপের মাধ্যমে পৌঁছানো সম্ভব। নেত্রনালি, চোখ, অপটিক নার্ভ (চোখের øায়ু), করোটির মেঝে এবং মস্তিষ্কের পিটুইটারি গ্রন্থিতে এন্ডোস্কোপের সাহায্যে পৌঁছানো যায়। উন্নত বিশ্বে ক্রনিক সাইনোসাইটিস এবং নাকের পলিপের জন্য এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারিই একমাত্র চিকিৎসা পদ্ধতি, যা অতীতের সব চিকিৎসা পদ্ধতির ঊর্ধ্বে স্থান নিয়ে এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছে।
নেত্রনালির নাকের মধ্যস্থিত প্রবাহে বাধাপ্রাপ্ত হলে এন্ডোস্কোপিক ডিসিআর (যা এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারির একটি বিশেষ পদ্ধতি) উন্নততর ফল দেয়, যা অজ্ঞান না করে শুধু অবশ করে করা যায় এবং একই সঙ্গে উভয় পাশে করা সম্ভব। এতে মুখমণ্ডলে কোন দাগ পড়ে না। অরবিটাল ডিকম্প্রেশন এবং অপটিক নার্ভ ডিকম্প্রেশন নাকের ভেতর দিয়ে এন্ডোস্কোপের সাহায্যে করা সহজতর এবং এতেও বাইরে কোন দাগ পড়ে না। ঈ ঝ ঋ জযরহড়ৎযড়বধ (নাকের মধ্য দিয়ে মস্তিষ্কের মধ্যকার তরল পদার্থ লিক করা) এবং মস্তিষ্কের পিটুইটারি গ্রন্থির টিউমারে নাকের ভেতর দিয়ে এন্ডোস্কোপের সাহায্যে নাক, কান, গলা বিশেষজ্ঞের দ্বারা (এবং প্রয়োজনে নিউরোসার্জনের সহায়তায়) অপারেশনই আধুনিক বিশ্বে সর্বাধিক প্রচলিত চিকিৎসা পদ্ধতি।

অধ্যাপক ডা. জাহীর আল-আমিন
বিভাগীয় প্রধান
নাক, কান, গলা, হেড অ্যান্ড নেক সার্জারি বিভাগ, বারডেম