ফার্স্ট ডেটে যেসব খাবারকে না বলবেন

0

দু’জনে প্রথম দেখা করতে যাচ্ছেন। এই সাক্ষাতের জন্য নিশ্চয়ই রেস্তোরাঁ বা কফিশপকেই বেছে নেবেন? তবে খেতে বসে এমন কোনো খাবার অর্ডার দেবেন না যাতে আপনার ব্যক্তিত্ব নষ্ট হয় কিংবা আপনার সঙ্গী বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে। তাই প্রথম ডেটে যেসব খাবার অর্ডার করবেন না তার একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে রিডার্স ডায়জেস্টে। ডেটে যাওয়ার আগে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন।

১. স্পাইসি খাবার
স্পাইসি খাবার যেমন স্বাস্থ্যের জন্য ভালো না, তেমনি ডেটের জন্যও ভালো না। হয়তো আপনার সঙ্গী একদমই ঝাল খেতে পারে না। স্রেফ আপনার কারণে সে বাধ্য হয়ে খাবে। এমন পরিস্থিতিতে আপনি বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে যেতে পারেন।

২. স্যুপ
স্বাস্থ্যকর খাবার হিসেবে স্যুপ তালিকার সবার ওপরে রয়েছে। তবে ডেটে যত পারুন এই খাবারটি এড়িয়ে চলুন। বরং স্যুপ খাওয়ার সময় শব্দ হলে আপনার সঙ্গী অস্বস্তি অনুভব করতে পারে।

৩. হ্যামবার্গার
বার্গার খেতে পছন্দ করে না এমন মানুষ বলতে গেলে কমই আছে। আপনি অর্ডার দিলে আপনার সঙ্গীও খুশি হবে। কিন্তু সমস্যাটা হবে তখন, যখন খেতে যাবেন। প্রথম দেখা করতে এসে মুখ ‘হাঁ’ করে খাওয়াটা দু’জনের জন্যই অস্বস্তিকর।

৪. বড় চিংড়ি
বড় চিংড়ি খেতে ভীষণ সুস্বাদু, এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু একবার ভাবুন তো, আপনার সামনে আপনার সঙ্গী বসে আছে আর আপনি বড় হাত পাওয়ালা চিংড়ি চিবোচ্ছেন!

৫. গার্লিক ব্রেড
গার্লিক ব্রেড খাওয়ার সময় কোনো সমস্যা নেই, বরং ঝামেলাবিহীন একটা খাবার। তবে বিদায় জানানোর সময় মুখ থেকে রসুনের গন্ধ এলে চরম বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হবে আপনাকে। তাই এই খাবার ডেটে এড়িয়ে চলুন।

৬. মাংস
আপনার সঙ্গী কোন মাংস খেতে পছন্দ করে বা কোনো মাংস খায় না সেটি জানার আগে ডেটে গিয়ে মাংস অর্ডার না দেওয়াই ভালো। আর হতে পারে আপনার সঙ্গী বেশ স্বাস্থ্যসচেতন, তাই মাংস একদমই খায় না। এ ক্ষেত্রে আপনাকে দেখানোর জন্য সামান্য পরিমাণে খেলেও মনে মনে ঠিকই অখুশি হবে।

৭. ব্যুফে
ব্যুফে খেতে যাওয়ার একটা সুবিধা আছে যে, সঙ্গী তার ইচ্ছেমতো খাবার বেছে নিতে পারবে। কিন্তু আপনি যদি নিজের প্লেটে ভুলবশত বেশি খাবার নিয়ে ফেলেন, তাহলে সঙ্গীর সামনে অযথা আপনার মানসম্মান নষ্ট হবে। আর বার বার উঠে গিয়ে খাবার আনতে যাওয়াটাও অস্বস্তিকর।