ত্বকের শুষ্কতায় কি ব্যবহার করবেন

0

শীতকাল শুরু। এখন থেকেই মানুষের ঠোঁট, মুখ, শরীর শুষ্ক হতে শুরু করেছে। বায়ুমণ্ডলের আর্দ্রতা (Humidity) হ্রাস পাবার কারণে শীতকালে শরীরে শুষ্কতা দেখা দেয়। অনেকের প্রাথমিক পরিচর্যা না করার কারণে শীতে ঠোঁট ফেটে যায় এমনকি ঠোঁট ফেটে রক্ত পর্যন্ত বের হয়। এছাড়া পায়ের তলা ফেটে যায়। সমস্ত শরীরে শুষ্ক, শুষ্কভাব দেখা দেয়।
এ ধরনের সমস্যাকে ড্রাই স্কিন (Dry Skin) বলা হয়। আমরা সাধারণত শীতে ড্রাই স্কিনে পিওর পেট্রোলিয়াম জেলি, গ্লিসারিন ইত্যাদি ব্যবহার করতে বলি। তবে বাজারে অনেক কোম্পানির পেট্রোলিয়াম জেলি পাওয়া যায়। তন্মধ্যে দুটি কোম্পানির ভ্যাসলিন ও পেট্রোলিয়াম জেলি বহুল ব্যবহূত হয়। শুধু তাই নয়, শরীরে লাগানোর জন্য ভ্যাসলিন লোশনসহ নানা ধরনের ময়েশ্চরাইজার লোশন পাওয়া যায়।

a3

“তবে এ ধরনের ময়েশ্চরাইজার ব্যবহারের আগে কোনো প্রতিষ্ঠিত ভালো কোম্পানির প্রডাক্ট ব্যবহার করবেন।”
এছাড়া যাদের ঠোঁট ফেটে যায় তারা ভ্যাসলিন, পেট্রোলিয়াম জেলির পাশাপাশি লিপজেল ব্যবহার করতে পারেন। তবে মনে রাখতে হবে অনেক ক্ষেত্রে স্বাভাবিক ড্রাই স্কিনের পাশাপাশি পায়ের তলা ফেটে যায়।
এটা অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের স্কিন ডিজিজের ( Skin Disease )কারণে হয়। এক্ষেত্রে কোনো চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে পারেন। এছাড়া শীতে ত্বকের আর্দ্রতা ঠিক রাখতে কোনো ভাল কোম্পানির ময়েশ্চারাইজার লোশন, ক্রিম, ব্যবহার করতে পারেন। শিশুদেরও ত্বকের শুষ্কতা রোধে নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত।