অতিরিক্ত ধূমপান অ্যালজেইমার ও মতিভ্রষ্টতার ঝুঁকি বাড়ায়

0

অতিরিক্ত ধূমপান অ্যালজেইমার ও মতিভ্রষ্টতার ঝুঁকি বাড়ায়
অতিরিক্ত ধূমপান অ্যালজেইমার ও মতিভ্রষ্টতার ঝুঁকি বাড়ায়
॥ ই-হেলথ২৪ ডেস্ক ॥  সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে ধূমপান শুরুর বিশ বছরের মধ্যে কিংবা মধ্যবয়সে অ্যালজেইমার এবং মতিভ্রষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা দ্বিগুণ বেড়ে যায়।

আর্কাইভ অব দ্য ইন্টারনাল মেডিসিনের একদল বিজ্ঞানী তাদের গবেষণার পর এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। রাসেল হুইটমার, কেজার পার্মামেন্টি, ক্যলিফোর্নিয়া এবং তাদের সহযোগীরা এ গবেষণায় ধূমপানের কারণে নতুন এই রোগটি হওয়ার সম্ভাবনা খতিয়ে দেখেছেন।

তারা দেখেছেন, অতিরিক্ত ধূমপায়ী নারী বা পুরুষ উভয়েরই মধ্যবয়সে মতিভ্রষ্ট হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকর। তারা বলেন, এমনিতেই এই বয়সে মানুষ উদ্বেগ-উৎকণ্ঠাকে খুব বেশি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন না ।

মূলত ৫০ থেকে ৬০ বছর বয়সী ২১ হাজার ১২৩ জন মানুষের ওপর এ গবেষণা পরিচালিত হয়। এখানে দেখা যায়, ২০ বছরের বেশি সময় ধরে যারা ধূমপান করছেন তাদের মধ্যে ২৫ ভাগ লোক মানসিক অস্থিরতায় ভুগছেন।

অ্যালজেইমার হচ্ছে মতিভ্রষ্ট হওয়ার একটি স্বাভাবিক নিদর্শন। এ রোগে যারা ভোগেন তাদের পর্যায়ক্রমে স্মৃতি নষ্ট হয়ে যায় এবং তারা নিজেদেরও ভুলতে বসেন। বিশ্বে ২৬ লাখ লোক বর্তমানে এ রোগে ভুগছেন। যারা দিনে গড়ে দুই প্যাকেট সিগারেট শেষ করেন তারা আছেন সবচে ঝুঁকির মধ্যে।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বের প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ প্রতি বছর তামাকজনিত কারণে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক এবং ক্যান্সারে মারা যাচ্ছেন। আর যারা পরোক্ষভাবে নিঃশ্বাসের মাধ্যমে ধূমপানের শিকার হচ্ছেন তাদের মধ্যেও প্রায় ৪ লাখ ৩০ হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করছেন।

এ সংস্থার মতে, ২০১০ সালে বিশ্বে মানসিক ব্যাধিজনিত কারণে খরচ ২০৬ বিলিয়ন ডলারে পৌছেছে, যা গ্লোবাল জিডিপির এক শতাংশেরও বেশি। এই পরিমাণটা ২০৫০ সালের মধ্যে প্রায় তিন গুণ হতে পারে।