ঢাকার অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস

0

বিপদ-আপদ কখনও বলে-কয়ে আসে না। বড় ধরনের শারীরিক অসুস্থতা কিংবা আহত হলে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য সবার আগে প্রয়োজন হয় অ্যাম্বুলেন্সের। বহুরৈখিকের আজকের আয়োজনে ঢাকার উল্লেখযোগ্য কিছু অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের প্রয়োজনীয় তথ্য তুলে ধরা হল-

আলিফ অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
১৯৯০ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানটি রোগী পরিবহন ও মৃতদেহ স্বজনদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কাজে দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা নিয়োজিত। বর্তমানে এসি ও নন-এসি মিলিয়ে ১৪টি অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে আলিফ অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। দূরত্বভেদে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকার ভাড়া বিভিন্ন রকম হয় এবং ঢাকার বাইরে ও দূরত্বভেদে ভিন্ন রকম হয়। একসঙ্গে মোট ভাড়া নির্ধারিত হয় বলে তেল বা গ্যাস, অক্সিজেন ও এসি ইত্যাদির খরচ আলাদাভাবে দিতে হয় না। কল দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। তবে রাস্তার দূরত্ব ও যানজটের কারণে সময়ের তারতম্য হয়। কল দেওয়ার সময় অগ্রিম টাকা প্রদান করতে হয় না। জরুরি হলে আগে গাড়ি পাঠানো হয়, পরে টাকা দিতে হয়। আর লাশ পরিবহন করলে আগের দিন অগ্রিম টাকা পরিশোধ করতে হয়।
যোগাযোগ : ৭৬/এ পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা-১২১৫। বসুন্ধরা সিটি শপিংমল থেকে পশ্চিম দিকে শমরিতা হাসপাতালের পূর্ব দিকে ১০০ গজ দূরে পান্থপথ চৌরাস্তা থেকে পশ্চিম দিকে ২০০ গজ দূরে ডানদিকে অবস্থিত। ফোন-৯১৩১৬৮৮, ৮১১৭৫৭৬, মোবাইল-০১৮১৯-২৫৩৭৭৭, ০১৫৫২-৬৩৭৭০৫, ০১৭১৩-২০৫৫৫৫।

কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
১৯৫৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি জাতীয় অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ ইব্রাহিমের প্রচেষ্টায় ‘বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি’ প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকার সেগুনবাগিচায় স্বল্প পরিসরে প্রতিষ্ঠিত এ ডায়াবেটিক সমিতি সারা দেশে চিকিৎসাসেবা সম্প্রসারিত করেছে। ২০০৭ সালের ৩ জুন কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস যাত্রা শুরু করে। সদস্য ও সদস্যা নয়- এমন সবার জন্য অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস সুবিধা গ্রহণের ব্যবস্থা রয়েছে। তাৎক্ষণিক ব্যবস্থাপনায় সহায়তার জন্য রোগীর কার্ডিয়াক সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য প্রদান করতে হয়। অন্য হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের ক্ষেত্রে রোগীর কেস সামারি সঙ্গে আনতে হয়। যাতায়াতের সময় সব ব্রিজ ও ফেরি ভাড়া রোগীর স্বজনদের পরিশোধ করতে হয়। বুকিং করার সময় ২৫ শতাংশ অগ্রিম হিসেবে এবং বাকি ৭৫ শতাংশ যাত্রার আগে জমা দিতে হয়। ঢাকা শহর ও এর বাইরের যে কোনও অঞ্চল থেকে কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্স সুবিধা পাওয়া যায়। পুরো ঢাকা শহরসহ দেশের যে কোনও অঞ্চল থেকে কার্ডিয়াক ও মুমূর্ষ রোগীদের এ অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান করা হয়।
যোগাযোগ : ১২২ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, শাহবাগ, ঢাকা। ইমার্জেন্সি হটলাইন ০১৭১৩-০০৩০০৪, ইনফরমেশন ডেস্ক ০২- ৯৬৭১১৪১-৪৩, ০২-৯৬৭১১৪৫-৪৭ এক্স-২০৬, ২০২, ফ্যাক্স +৮৮-০২-৯৬৭৪৩০।

হৃদরোগ হাসপাতাল অ্যাম্বুলেন্স
জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই হাসপাতালে ৬টি অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে। এসি ও নন-এসি অ্যাম্বুলেন্সও রয়েছে। এদের সব সেবা শুধু ঢাকার অভ্যন্তরে, ঢাকার বাইরে কোনও সার্ভিস নেই। শুধু অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া এসি ৫০০ এবং নন-এসি ৩০০ টাকা। তেল, গ্যাস ইত্যাদির যাবতীয় খরচ সরকারিভাবে বহন করা হয়। এখানে অক্সিজেন ও রক্ত প্রদানের সুবিধা রয়েছে। এই অ্যাম্বুলেন্স সুবিধা নেওয়ার জন্য অগ্রিম অর্থ প্রদান করতে হয় না। এখানে সাধারণত নগদ বিল পরিশোধ করতে হয়। স্টকে থাকলে অ্যাম্বুলেন্স সরবরাহ করা হয়।
যোগাযোগ : জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল,  কলেজগেট-শ্যামলী, ঢাকা। ফোন ৯১২২৫৬০-৭৮।

আল মারকাজুল ইসলাম অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
এ অ্যাম্বুুলেন্স সার্ভিস ১৯৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই প্রতিষ্ঠানের ৩০টি অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে। এ অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসটি সম্পূর্ণ সেবামূলক। গরিব ও অসহায় রোগীদের ক্ষেত্রে ফ্রি সার্ভিস দেওয়া হয়। অ্যাম্বুলেন্সগুলো শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। অ্যাম্বু^ুলেন্সের ভেতর অক্সিজেন ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে নির্ধারিত ভাড়ার কোনও তালিকা নেই। গ্রাহক যা দেন, সেটিই নিয়ে থাকে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া অক্সিজেন ও এসির জন্য আলাদা টাকা দিতে হয়। ভাড়া নগদ পরিশোধ করতে হয়। রাস্তায় গাড়ির সমস্যা হলে তাৎক্ষণিকভাবে নতুন গাড়ির ব্যবস্থা করে থাকে কর্তৃপক্ষ। রাত-দিন ২৪ ঘণ্টা যে কোনও সময় ফোনকলের মাধ্যমে অ্যাম্বু^ুলেন্স বুকিং দেওয়া হয়। অ্যাম্বু^ুলেন্স স্টকে থাকলে ফোনকল পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কাক্সিক্ষত ঠিকানায় চলে যায়।
যোগাযোগ : ২১/১৭ বাবর রোড (শিশুমেলার জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের বিপরীত পাশের গলি দিয়ে ১০০ গজ এগিয়ে হাতের ডানপাশে), মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭। ফোন-৯১২৭৮৬৭, ০১৮১৮-৭৩২৯০৫।

সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
অ্যাম্বু^ুলেন্সগুলো ঢাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ। ঢাকার বাইরে এদের কোনও সেবা নেই। শুধু সরকারি হাসপাতালগুলোয় অ্যাম্বু^ুলেন্সে রোগী পরিবহন করা হয়। প্রাইভেট হাসপাতাল বা ব্যাক্তিগত আহ্বানে রোগী পরিবহনে অ্যাম্বু^ুলেন্স সার্ভিস পাওয়া যায় না। অ্যাম্বু^ুলেন্সের ভেতরে অক্সিজেন ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সগুলো ঢাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ।  রাজধানীর মধ্যে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়ার হার ৩০০ টাকা। হরতাল বা ছুটির অন্যান্য দিনে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস পাওয়া যায় এবং মূল্যের কোনও পরিবর্তন হয় না।
যোগাযোগ : সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ, কলেজগেট-শ্যামলী, (জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের পাশে) ঢাকা। ফোন ৯১৩০৮০০-১৯, মোবাইল ০১৭১২-৬২০৬৫৩, ০১৭১২-২৫৪৯৩৮।

মেডিনোভা মেডিক্যাল সার্ভিসেস লিমিটেড
মেডিনোভা মেডিক্যাল সার্ভিসেস লিমিটেডের রোগী আনা-নেওয়া করার জন্য অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অ্যাম্বুলেন্সটিতে অক্সিজেনের ব্যবস্থা রয়েছে। রক্ত ও প্রাথমিক চিকিৎসা সুবিধা নেই। অ্যাম্বুলেন্সটিতে রোগী ছাড়াও পেছনে ৩ জন এবং ড্রাইভারের পাশের সিটে ১ জনের বসার ব্যবস্থা রয়েছে।
এই অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসটি ঢাকা মহানগরজুড়ে সেবা প্রদান করে থাকে। ঢাকার বাইরে এই অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস কোনও সেবা প্রদান করে না। পথে যদি অ্যাম্বুলেন্স বিকল বা অন্য কোনও সমস্যার সৃষ্টি হয়, তাহলে অন্য অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের মাধ্যমে রোগী বহনের ব্যবস্থা করা হয়।
যোগাযোগ: বাড়ি-৭১/এ, রোড-৫/এ, ধানম-ি (সাতমসজিদ রোডে অবস্থিত আনম র‌্যাংকস প্লাজা থেকে দক্ষিণ দিকে ৫০০ গজ সামনে এগিয়ে হাতের বামপাশে), ঢাকা। ফোন ৮৬২০৩৫৩-৬, ৮৬২৪৯০৭-১০, ৯৬৭০৪৩৪-৬।

স্কয়ার হাসপাতাল অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
স্কয়ার হাসপাতাল একটি স্বনামধন্য বেসরকারি হাসপাতাল। সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ ও উন্নত সেবা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এ হাসপাতালটি ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই হাসপাতালে রয়েছে উন্নতমানের অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস। এদের ৪টি অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে। সবটিই মার্সিডিস ভেঞ্চের গাড়ি। রোগীর যা যা দরকার হয়, এর সবই রয়েছে এ অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসে। অক্সিজেন থেকে শুরু করে ব্লাড, এসিসহ সব সাপোর্ট দেওয়া হয়। একটি অ্যাম্বুলেন্সে রোগী ছাড়া আরও দুজন বসতে পারেন। রাস্তায় রোগী পরিবহনে যদি অ্যাম্বুলেন্স বিকল হয়ে যায়, তাহলে ওই স্থানে আরেকটি গাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। ঢাকার ভেতরে অগ্রিম টাকা পরিশোধ না করলেও চলে। কিন্তু ঢাকার বাইরের ক্ষেত্রে অগ্রিম ন্যূনতম ৮০ শতাংশ টাকা পরিশোধ করতে হয়। ভাড়া নগদ ও চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করা যায়।
যোগাযোগ: ১৮/এফ, পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা-১২০৫। ফোন ৮৮-০২-৮১২৯৩৩৪, ৯১৪৬২৪৮, ৮১৫৬৫২২, ৮১৫৭৮৫৩, ৮১৫৯৪৫৭-৬৪, ফ্যাক্স ৮৮-০২-৯১১৮৯২১, অ্যাম্বুলেন্স বুকিং ০১৭১৩-৩৭৭৭৭৫, ০১৭১৩-৩৭৭৭৭৩, ৮১৪৪৪৬৬।

ঢাকা মেডিক্যাল অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল জনগণের সুবিধার্থে এবং জরুরি সেবা প্রদানের উদ্দেশে ২০০৯ সালে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালু করে। এর নাম দেওয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল জরুরি বিভাগ। এর অ্যাম্বুলেন্স সংখ্যা ৪। এদের এসি অ্যাম্বুলেন্স নেই। গাড়ির ভেতরে রোগীসহ ৬ থেকে ৭ জন থাকতে পারেন। গাড়ির ভেতরে শুধু অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে। ঢাকা সিটির ভেতরে ৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত সর্বনিম্ন ভাড়া ৩০০ টাকা। ৩০ কিলোমিটার পার হওয়ার পর প্রতি কিলোমিটারে ১০ টাকা করে চার্জ দিতে হয়। সাধারণত ঢাকার বাইরে এদের অ্যাম্বুলেন্স যায় না। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে উত্তরা এবং যাত্রাবাড়ীর সানারপাড় পর্যন্ত ৩০০ টাকা ভাড়া। ভাড়া অগ্রিম অথবা রোগী আনা-নেওয়ার পর পরিশোধ করা যায়। রাস্তায় গাড়ি নষ্ট হলে আরেকটি গাড়ি পাঠানো হয়। রাত-দিন ২৪ ঘণ্টার ফোনকল দেওয়া যায়।
যোগাযোগ :  ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ২ নম্বর গেট দিয়ে ঢুকে বামদিকে যানবাহনের শাখায় অবস্থিত। অ্যাম্বুলেন্সের বুকিংয়ের জন্য ০১৯১১-২৬৯৪৪৯ নম্বরে ফোন দিতে হবে। তবে দুপুর ২টার আগ পর্যন্ত অ্যাম্বুলেন্সগুলো যানবাহন শাখার দায়িত্বে থাকে। তখন ওই নম্বরে ফোন দিতে হবে। এরপর অ্যাম্বু^ুলেন্সগুলো জরুরি বিভাগের দায়িত্বে থাকে। তখন জরুরি বিভাগে যোগাযোগ করতে হয়। ফোন ৮৬২৬৮১৩, এক্স-২৭৪০, মোবাইল ০১৯১১-২৬৯৪৪৯।

আদ্‌-দ্বীন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
আদ্্-দ্বীন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস সাধারণত তাদের রোগীকে আনা-নেওয়ার কাজে ব্যবহৃত হয়। তবে এটি বাইরের রোগীদের পরিবহনের সেবায়ও নিয়োজিত। রোগীদের উন্নত সেবা দেওয়ার উদ্দেশ্যে ২০০৮ সালে আদ্্-দ্বীন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস প্রতিষ্ঠিত হয়। এই প্রতিষ্ঠানের অ্যাম্বুলেন্সের সংখ্যা ৪৬। এদের অ্যাম্বুলেন্সের ভেতরে শুধু অক্সিজেনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তবে একটি ছোট ফ্যানও রয়েছে। এর ভেতর রোগী ছাড়া আরও ৩ থেকে ৪ জন বসতে পারেন। ঢাকা মহানগরীর মধ্যে মূল্য মাত্র ২৬০ টাকা। তবে ঢাকার বাইরে বেশি দূরে সাধারণত গাড়ি পাঠানো হয় না। ২৬০ টাকা একবারেই পরিশোধ করতে হয়। যদি কারও অক্সিজেন নেওয়ার প্রয়োজন হয়, তাহলে আরও ১০০ টাকা দিতে হয়। গরিবদের সম্পূর্ণ ফ্রি পরিবহন করা হয়।
যোগাযোগ :  ২ বড় মগবাজার (মগবাজার চৌরাস্তা থেকে কাকরাইলের রোড থেকে ৫০ গজ দূরে বামদিকের গলির ভেতরে ডানদিকে), ঢাকা-১২১৭। ফোন-১০৬১০, মোবাইল ০১৭১৩-৪৮৮৪১১, ০১৭১৩-৪৮৮৪১২

লাশবাহী ফ্রিজার ভ্যান
গ্রীষ্মপ্রধান বাংলাদেশে মৃতদেহ দূরে নিয়ে যাওয়াটা অনেক সময় বেশ ঝক্কির ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এক্ষেত্রে ফ্রিজার ভ্যান বেশ সহায়ক। ঢাকায় অবস্থিত জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল এ রকম একটি সেবা চালু করেছে। ঢাকাসহ সারা দেশে এদের ফ্রিজার ভ্যান সেবা পাওয়া যায়। প্রতিটি ভ্যানে সর্বোচ্চ দুটি মৃতদেহ বহন করা যায়। কারও ফ্রিজার ভ্যান প্রয়োজন হলে সরাসরি হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক একটি ফি দিতে হয়। অবশ্য ফোন করলেও ভ্যান যথাস্থানে পৌঁছে যাবে। ফ্রিজার ভ্যান সার্ভিসের হটলাইন ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকে।
যোগাযোগ : জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল, ৫৫ সাতমসজিদ রোড, ঝিগাতলা বাসস্ট্যান্ড, ঢাকা-১২০৯। ফোন +৮৮-৯৬৭২২৭৭, ৯৬৬৪০২৮-৯, ফ্যাক্স ৮৮-০২-৯৬৭৫৬৭৪।

আরও কিছু ফোন নাম্বার
আলিফ অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস-৮১১৭৫৭৬, ৯১৩১৬৮৮, আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম-৯৩৩৬৬১১, ৭৪১১৬৬০, ৭৪১০৭৮৬, আপনজন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস-৯১২৫৪২০, বারডেম হাসপাতাল-৯৬৬১৫৫১-৬, ৮৬১৬৬৪১-৫০, এক্স-২৩০১, সিএমএইচ (ঢাকা)-৯৮৭১৪৬৯, ডে-নাইট অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস-৯১২৩০৭৩, ৮১২২০৪১, ঢাকা সিটি করপোরেশন (মিরপুর কন্ট্রোল রুম)-৯০০৪৭৩৪, ঢাকা সিটি করপোরেশন (নগর ভবন কন্ট্রোল রুম)-৯৫৫৬০১৪, ৯৫৫৬০১৮, ৯৫৫৭১৮৬-৮৭, ফায়ার সার্ভিস-৯৫৫৬৬৬-৭, ৯৫৫৩৩৩৩-৭, ৯৫৫৫৫৫৫, গ্রিন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস-৯৩৩৪১২১, ৮৬১২৪১২, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতাল-৮৩১১৭২১-৫, ৯১১৩৫১২, আইসিডিডিআরবি (মহাখালী)-৮৮১১৭৫১-৬০, ৬০০১৭১-৮, মেডিনোভা মেডিক্যাল সার্ভিস-৮১১৩৭২১, ৯১২০২৮৮, মনোয়ারা হাসপাতাল-৮৩১৮১৩৫, ৮৩১৯৮০২, ৮৩১৮৫২৯, ন্যাশনাল হার্ট ইনস্টিটিউট-৯১২২৫৬০-৭২, প্রাইম জেনারেল হাসপাতাল-৯৫৬২২৬৭, রাফা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস-৯১১০৬৬৩, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি-৯৩৩০১৮৮-৯, ৯৩৫৮৭৯৯, সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ-৭৩১৯০০২-৬, শেফা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস-৯১১১৭৫৮, ৮১১০৮৬৪, শিশু হাসপাতাল-৮১১৬০৬১-২, ৮১১৪৫৭১-২, সাউথ এশিয়ান হাসপাতাল-৮৬১৬৫৬৫, ৯৬৬৫৮৫২, কলেরা হাসপাতাল-৮৮১১৭৫১-৬০, লাইফলাইন-৮১৫৫৫৫০-২।