বাজারে গিয়ে দেখি তিতকরলার দাম বেজায় বেড়েছে। এখন ৬০ টাকা কেজি। কারণ কী? বিক্রেতার উত্তর: স্যার, এখন করলার মৌসুম না। তাই।
তাই এই নিবন্ধ লিখতে গিয়ে ভয় পাচ্ছি। তবু ভাবলাম, এর সুফল তো হতে পারে। তিতকরলার ব্যবসায়ীরা কেউ করলার স্বাস্থ্যহিতকর গুণের কথা জেনে করলার দাম কমাতেও পারেন জনস্বার্থে। সব সময় নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখবেন? ভালো ফলও হতে পারে।

তিতকরলা বলুন, উচ্ছে বলুন, এ সবজি যেন কেউ তেমন আনন্দের সঙ্গে আহার করেন না। করলার রস হিতকর জেনেও অনেকের একে গলাধঃকরণে অনীহা। গবেষকেরা ইদানীং দেখেছেন, বাংলাদেশ, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আমেরিকার এই সবজি তিতকরলার রস খেলে রমণীদের স্তন ক্যানসারে সুরক্ষা হয়।
তিতকরলার নির্যাস বা রস যা-ই বলুন, আমেরিকাসহ অনেক উন্নত দেশের হেলথ ফুড স্টোরে সাজানো থাকে। ডায়াবেটিসের চিকিৎসায়, লোকজ চিকিৎসা হিসেবে ব্যবহূত হয়। রক্তের সুগার কমানোর গুণ আছে করলার, এমন তথ্য রয়েছে।
বিজ্ঞানীরা গবেষণাগারে পরীক্ষা করে দেখেছেন, তিতকরলা রসের রয়েছে আরও হিতকরী গুণ, এই গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে ‘ক্যানসার রিসার্চ’ জার্নালের এ বছরের পয়লা মার্চ ইস্যুতে।
আমেরিকার সেন্টলুই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজির অধ্যাপক ও মুখ্য গবেষক রত্না রায় বলেন, তিতকরলার নির্যাস নিয়ে গবেষণাগারে পরীক্ষা করে দেখা গেল, স্তন ক্যানসার নাশের ক্ষমতা এর রয়েছে। আর এর প্রয়োগে স্বাভাবিক কোষ অবশ্য বিনষ্ট হয়নি। তবে গবেষণাগারে পেট্রিডিশে যে পরীক্ষার ফলাফল তাতে দেখা গেছে, তা মানবেতর প্রাণীতে পরীক্ষা করে এবং পরে মানুষের ওপর পরীক্ষা করে দেখা প্রয়োজন হবে। তা না হলে তিতকরলার রস খেলে ক্যানসার সুরক্ষা বা প্রতিরোধ হবে সে সম্বন্ধে সিদ্ধান্ত দেওয়া কঠিন হবে।
রত্না রায় বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি না যে তিতকরলার রস ক্যানসার নিরাময় করে, তবে ক্যানসার হলে এর অগ্রগতি শ্লথ করে দিতে পারে, কিছুটা সুরক্ষা ক্ষমতাও এর থাকতে পারে।’
তিতকরলার রসে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ ও ফ্লাভোনয়েডস। স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।

অধ্যাপক শুভাগত চৌধুরী
পরিচালক, ল্যাবরেটরি সার্ভিসেস, বারডেম হাসপাতাল সাম্মানিক অধ্যাপক, ইব্রাহিম মেডিকেল কলেজ, ঢাকা। |